ইসলামি লেকচার

আভিভাবক ছাড়া ছেলে মেয়ের বিবাহ বৈধ কি?

বিবাহ

আভিবাবক ছাড়া মেয়ের বিবাহ বৈধ কি?
শায়েখ মাহমুদুল হাসান আল মাদানী

حَدَّثَنَا ابْنُ أَبِي عُمَرَ، حَدَّثَنَا سُفْيَانُ بْنُ عُيَيْنَةَ، عَنْ ابْنِ جُرَيْجٍ، عَنْ سُلَيْمَانَ بْنِ مُوسَى، عَنْ الزُّهْرِيِّ، عَنْ عُرْوَةَ، عَنْ عَائِشَةَ، أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، ‏‏‏‏‏‏قَالَ:‏‏‏‏ أَيُّمَا امْرَأَةٍ نَكَحَتْ بِغَيْرِ إِذْنِ وَلِيِّهَا، ‏‏‏‏‏‏فَنِكَاحُهَا بَاطِلٌ، ‏‏‏‏‏‏فَنِكَاحُهَا بَاطِلٌ، ‏‏‏‏‏‏فَنِكَاحُهَا بَاطِلٌ
——সূনান আত তিরমিজী (হাদিস নম্বরঃ ১১০২)
আয়েশা (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ অভিভাবকের অনুমতি ব্যতীত কোন মহিলা বিয়ে করলে তার বিয়ে বাতিল, তার বিয়ে বাতিল, তার বিয়ে বাতিল।

তাহলে স্পষ্ট হয়ে গেল যে আজকে আমাদের দেশে যা প্রতিনিয়ত ঘটছে। যে অভিভাবকের কোন অনুমতি বা তার সম্মতি ছাড়া সে খানে ছেলে এবং মেয়ে কোর্টে গিয়ে সধারনত কাজীর মাধ্যমে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এটা দেশিয় আইনে যদিও এটাকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে কিন্তু প্রিয় নবীর হাদিসের কথা তিনি বলেছেন অভিভাবকের অনুমিতি ছাড়া বিয়ে করলে সেই বিয়ে বাতিল। শুধু কি এটা ছেলে এবং মেয়ে একটা বয়েসের, কম বয়সের কারনে অনভিজ্ঞতার কারনে আবেগ আপ্লূত হয়ে তারা পরস্পর পরস্পর এর প্রতি আকৃষ্ট হয়ে তারপর তারা গিয়ে কোর্টে কাজীর মাধ্যমে তারা বিবাহ সম্পন্ন করে। এর যে মন্দ পরিনতি আমরা প্রায় দেখে থাকি।

এই বিষয়ে আমরা যে সমাধান পাই

ওলি(অভিভাবকের) ছাড়া বিয়ে হবে না, তবে ওলামা গন অবশেষে বলেছেন যে, যদি এমন হয় তারা বিয়ে করে ফেলল কিন্তু পরবর্তীতে ওলি (অভিভাবকের) আবার সম্মতি দিল তাহলে বিবাহকে গ্রহন করা যাবে।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close